নিউমেনিয়া কি? কারণ, লক্ষণ ও প্রতিকার সম্পর্কে আমাদের যা যা জানা দরকার

নিউমেনিয়া

নিউমেনিয়া হচ্ছে ফুসফুসে প্রদাহ জনিত রোগের নাম।  সাধারণত ফুস্ফুসে ভাইরাস, বেক্টেৰিয়া, ছত্রাকের আক্রমণের কারণে হয় নিউমেনিয়া

জীবাণু :

  • স্ট্রেপটোকক্কাস নিউমােনি  ।
  • স্ট্যাফাইলােক্কাস পাইওজেনস্ ।
  • ক্লেবসিয়েল্লা নিউমােনি ।
  • হেমােফিলাস ইনফ্লুয়েঞ্জা ।
  • মাইকোব্যাকটেরিয়াম নিউমােনি ।
  • Coxsackie Virus , Echoviruses , Respiratory Syncytial Virus নামক বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস এবং Coxiella Burmeti নামক ছােট জীবাণুরা । .Pneumococcus প্রধান বীজাণু !

রােগ আক্রমণ: হাঁচি কাশি প্রভৃতি থেকে অর্থাৎ Droplet infection .

রােগারম্ভ : হঠাৎ জ্বর , শীত ও কম্প দিয়ে ।

নিউমেনিয়া রােগলক্ষণ :

  • জুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ১০৩ ১০৪ ° ফাঃ ।
  • মাথা ধরা , হাতে – পায়ে এবং সারাদেহে দারুণ ব্যথা ।
  • বুকে সূচ বেঁধার মতাে ব্যথা ।
  • কর্কশ ও বেদনাদায়ক কাশি প্রথমে শুকনাে পরে আঠালােক বেরােয় । এতে রক্তের ছিটে থাকতে পারে ।
  • শ্বস দ্রুত ও বেদনাদায়ক হয় ( ৩০—৪০ প্রতি মিনিটে )
  • মুখ নীলচে ভাব ধারণ করে । ৭। বুকে কড় – কড় , কুরকুর অথবা শিস দেওয়ার মতাে শব্দ হতে পারে ।
  • জুর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ছাড়লেও কাশি , কফ , এ্যালােপ্যাথিক চিকিৎসা 99 বেদনা সারতে সময় লাগে ।

উপসর্গ :

  • বুকে জল জমতে পারে ।
  • হৃদ আবরণের প্রদাহ হতে পারে ।
  • বিলম্বিত Resolution – সারতে বিলম্ব ।

রােগ নির্ণয় :

  • অত্যধিক জ্বর হয় High Fever .
  • হঠাৎ জ্বর শুরু হয় ।
  • বুকে ব্যথা হয় ।
  • বুকে স্টেথিসকোপ দ্বারা পরীক্ষা করলে উপরিলিখিত শব্দ পাওয়া যায় ।
  • রক্ত পরীক্ষায়— Polymorphs অনেক বাড়ে ।
  • কফ পরীক্ষা -.Pnemococcus পাওয়া যায় । এক্স – রে পরীক্ষায় : সাদা ঘন ছায়া ( Dens Ho mogeneous Opacity ) লক্ষ্য করা যায় ।

চিকিৎসা :

১। বীজাণুনাশক ঔষধ :

*Inj . Genticyn – 80 mg ( ইঞ্জেকশন জেন্টিসিন — ৮০ মিগ্রা ) ১ টি করে ভায়াল দুবেলা দিতে হবে ।

*অথবা Inj . Klox – 500 mg ( ইঞ্জেকশন ক্লক্স – ৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে ভায়াল দুবেলা দিতে হবে ।

**অথবা inj . mox -500 mg ( ইঞ্জেকশন মক্স ৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে ভায়াল দিনে ২ বার । এইগুলি ৫ দিন দেবার পর মুখে খেতে দিতে হবে – Cap broadicillin -500 mg ( ক্যাপভিসিলিন – ৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ৩ বার ৫ দিন ।

***অথবা Cap moxycarb – 500 mg ( ক্যাপ মক্সিকার্ব – ৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ৩ বার ৫ দিন । অথবা Cap klox -500 mg ( ক্যাপ ক্লজ —৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ৩ বার ৫ দিন ।

**অথবা Tab claribid 250 – 500 mg ( ট্যাব ক্লারিবিড ২৫০-৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ২ বার ৫ দিন ।

*অথবা Cap Zithromax -250 mg ( ক্যাপ জাইথ্রোম্যাক্স ২৫০ মিগ্রা ) ২ টিকরে দিনে ১ বার ৩ দিন ।

*অথবা Cap ceftum -250 mg ( ক্যাপ সোম –২৫০ মিগ্রা ) ২ টি করে দিনে ২ বার ৫ দিন ।

২। জ্বরের জন্য দিতে হবে—

Tab malidens ( ট্যাব ম্যালিভেন্স ) অথবা Tab cofamol ( ট্যাব কোফামল ) অথবা Tab pacimol ( ট্যাব প্যাসিমল ) ১ টি করে ৩ বার ২-৩ দিন ।

৩। কাশির জন্য দিতে হবে—

suptex Liquid ( স্পটে লিকুইড ) ২ চামচ করে দিনে ৩ বার গরম জল সহযােগে । অথবা grilinctus Syrup ( গ্রিলিংটাস সিরাপ ) ২ চামচ করে দিনে ৩ বার জল ছাড়া । অথবা corex expecttorant ( কোরেক্স এক্সপেক্টোরান্ট ) ২ চামচ করে দিনে ৩ বার জলছাড়া ।

৪। বুকে ব্যথায়—

গরম সেঁক , Vicks vaproub মালিশ করতে হবে এবং খেতে দিতে হবে ( এগুলি দিলে ২ নং চিকিৎসা করতে হয় না , এতেই জ্বর নাশক ওষুধ থাকে) Tab codomolindon ( ট্যাব কোডােমােলিনডন ) ১টি করে দিনে ২ বার । অথবা Tab TWC – 30 ( ট্যাব টি – ডব্লিউ – সি -৩০ ) ১ টি করে দিনে ২বার ।

৫। খাদ্য—

দুধ , বার্লি , হরলিকস , ফলের রস , রুটি , বিস্কুট , প্রােটিনের বা প্রােটিনিউস , একবেলা চারামাছের হালকা ঝােল এবং ভাত প্রভৃতি খেতে দিতে হবে নিউমেনিয়া  হলে।

৬। ঠাণ্ডা লাগানাে একেবারে নিষিদ্ধ , জ্বর বেশি হলে মাথায় জল দিতে হবে । বাসগৃহস্যাঁতসেঁতেহলে রােগী হয় অন্য ঘরে রাখতে হবে নতুবা ঊচুবিছানায় ভালভাবে ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Change Language