হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা একটি প্রাকৃতিক নীতিভিত্তিকচিকিৎসা পদ্ধতি। এর মূলকথা হলোঃসুস্থাবস্থায় কোন ক্রুড (যা শক্তিকৃত নয়)ঔষধ স্থূল মাত্রায় (অধিক পরিমাণে) সেবনকরলে মানবদেহ ও মনে যে সব অসুস্থ্যকরলক্ষণ (যা পূর্বে ছিল না) প্রকাশ পায়-অনুরূপ লক্ষণযুক্ত প্রাকৃতিক অসুস্থতায় উক্তঔষধের শক্তিকৃত সূক্ষমাত্রা প্রয়োগ করেসেই অসুস্থতা/রোগ বা রোগ লক্ষণ দূর করা।এই নীতিটি বিজ্ঞানী নিউটনের গতির তৃতীয়সূত্রের সমানঃ প্রত্যেক ক্রিয়ার একটি সমানওবিপরীত প্রতিক্রিয়া আছে।এখানে ঔষধ রোগীর দেহে যে পরিমানে ক্রিয়া করে- জীবনী শক্তি দেহে অনুরূপ বিপরীত প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে রোগকে তাড়ায়।হোমিওপ্যাথিতে রোগ আরোগ্য নিম্নোক্ত নীতি অনুসারে করতে হয়ঃ

(১) সদৃশ্য বিধানে আরোগ্য সাধন।(২) শক্তিকৃত ঔষধ প্রয়োগ।(৩) একবারে একটিমাত্র ঔষধ প্রয়োগ করা।

(৪) অতি ক্ষুদ্র বা সূক্ষ্ম মাত্রায় ঔষধ প্রয়োগ।(৫) রোগের নাম ধরে নয়, রোগীর লক্ষণসমষ্টি দিয়ে চিকিৎসা করা।

(৬) চিকিৎসা আংশিক নয় (অর্থাৎ কেবল বিশেষ অঙ্গের রোগ সারানো নয়),সমগ্রভাবে করা (অর্থাৎ দেহ-মানের সামগ্রিক কষ্টকর লক্ষণ দূর করা)।

যেমন আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতিতে নিশ্চিতরূপে বলা যায় না যে , অমুক স্থানে অমুক ব্যক্তির ক্যান্সার কোন্ …আরও পড়ুন

পাইলস বা অর্শ এই শব্দ বা রোগ গুলোর সমন্ধে আমরা কম বেশি সবাই পরিচিত।  এগুলো হচ্ছে  …আরও পড়ুন

Change Language