সিফিলিস (Syphilis) বা উপদংশ রোগের কারণ, লক্ষন ও চিকিৎসা

সিফিলিস (Syphilis) বা উপদংশ রোগের কারণ, লক্ষন ও চিকিৎসা

সিফিলিস  :

সিফিলিস  রােগ সংক্রমণ  উপদংশগ্রস্ত পুরুষের সঙ্গে যৌন মিলনে নারীর এবং উপদংশগ্রস্ত নারীর সঙ্গে যৌন মিলনে পুরুষের এই রােগ হয় । রােগগ্রস্ত নারী বা পুরুষের সঙ্গে চুম্বনের মাধ্যমেও এই রােগ ছড়ায় । আবার অনেক সময় পিতামাতা থেকে রক্তের মাধ্যমে শিশুদের মধ্যে এই রােগ ছড়ায় ।

রােগ সংক্রমণের সময় : ৫-১২ দিন ।

জীবাণু : ট্রিপােনিমা প্যালিডাম ( Treponema Pallidum )

সিফিলিস রােগ লক্ষণ :

এই রােগের সব লক্ষণকে মােটামুটি তিন ভাগে ভাগ করা হয় । তা হলাে , ১। প্রথম অবস্থা ( Primary Stage ) ২। দ্বিতীয় অবস্থা ( Secondary Stage ) ৩। তৃতীয় অবস্থা ( Tertiary Stage ) ।

প্রথম অবস্থা ( Primary Stage ) :—

রােগগ্রস্ত ব্যক্তির সঙ্গে মিলনের ফলে । শরীরে রােগজীবাণু আসার ৫-১০ / ১২ দিনের মধ্যে পুরুষের লিঙ্গে এবং নারীর যােনীতে একটি ফুস্কুড়ি হয় । ক্রমশ তা চুলকোতে থাকে ও তার চারপাশে প্রদাহ যুক্ত হয়ে ওঠে।৩-৪ দিন পরে ফুস্কুড়ি জলপূর্ণ তলতলে ফোস্কার মতাে হয়ে ওঠে। এটাই  প্রাথমিক লক্ষণ ।

দ্বিতীয় অবস্থা ( Secondary Stage ) : —

রােগজীবাণুর আক্রমণ বেড়ে যায় । যােনি বা লিঙ্গের ফুস্কুড়ি গলে গিয়ে তা থেকে ঘা দেখা যায় । শুধু তাই নয় , লিঙ্গের ভিতরে মূত্রনালীর ভিতরে ও তার চারপাশে ঐ ধরনের ঘা দেখা যায় ; গায়ের অন্য জায়গায় ও চর্মে ফুস্কুড়ি বা ঘা দেখা যায় । তার কারণ জীবাণু রক্তের সঙ্গে মিশে যায় ।

তৃতীয় অবস্থা ( Tertiary Stage ) : —

রােগ পুরানাে হলে , নখ খসে যাওয়া , চুল উঠে যাওয়া , দেহের নানা স্থানে ঘা প্রভৃতি দেখা দেয় ; সিফিলিস্ বীজাণু হার্ট , ফুসফুস , কিডনি প্রভৃতি নানা স্থান আক্রমণ করে ; ও শরীর দুর্বল হয় এবং তার সঙ্গে নানা উপসর্গ দেখা যায় ;  স্নায়ুতন্ত্র আক্রান্ত হলে তা থেকে স্মৃতিলােপ , পক্ষাঘাত , প্রভৃতি হতে পারে , এমনকি রােগী পাগল হয়ে যায় ।

এই রােগ অতি ভয়াবহ । তাই প্রথম অবস্থাতেই চিকিৎসা করা কর্তব্য । তা না করলে পরে রােগ নিরাময় কঠিন হয়ে পড়ে ।

রােগ সন্দেহ হলেই রক্ত পরীক্ষা করতে হবে । Wassermann Khan ( WR ) Test ; এবং Vernal Disease Research Laboratory Test ( VDRL ) পজিটিভ হলে রােগ সম্বন্ধে নিশ্চিত হওয়া যায় ।

চিকিৎসা :

১। বীজাণুনাশক ঔষধ দিতে হবে— Inj . Penidure . LA – 24 ( ইঞ্জেকশন পেনিডিওর এলএ -২৪ ) নতুন রােগে ১ টি ভায়াল ১ বার মাত্র পেশীতে দিতে হয় ; পুরাতন রােগে ৭ দিন অন্তর অন্তর মােট তিনটি ভায়াল ।

*অথবা Inj Pencom ( ইঞ্জেকশন পেনক ) ১২ লাখ ভায়াল ২ টি একত্রে একই মাত্রায় প্রয়ােগ । করতে হয় ।

পেনিসিলিয়ামে অ্যালার্জী থাকলে দিতে হবে— Tab Resteclin -500 mg ( ট্যাব রেস্টেলিন | -৫০০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ৪ বার ২০-৩০ দিন পর্যন্ত ।

*অথবা Tab Linemett -500 ( ট্যাব লাইনমেট -৫০০ ) ১ টি করে দিনে ৪ বার ২০-৩০ দিন পর্যন্ত ।

*অথবা Tab Roxid 150 mg ( ট্যাব রক্সিড – ১৫০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ২ বার ৭ দিন -১০ দিন ।

**অথবা Tab Roxyrol 150 mg ( ট্যাব রক্সিরল – ১৫০ মিগ্রা ) ১ টি করে দিনে ২ বার ১০ দিন ।

ছােট শিশুদের Tab Roxyrol Kid 50 mg ( ট্যাব রক্সিরল কিড – ৫০ মিগ্রা ) –১ টি করে দিনে ১-২ বার ১০ দিন ।

২ । আক্রান্ত অংশ Dettol জলে ভালভাবে ধুয়ে Wokadine ( ওকাডিন বা Betadine ( বেটাডাইন ) লােশন লাগাতে হবে ।

৩। দেহে অন্যরােগ দেখা দিলে তা তৎক্ষণাৎ চিকিৎসা করতে হবে ।

সাধারণ শুভ্র :

১ । দুইজন যৌনসঙ্গীর যে – কোন একজন এই রােগে আক্রান্ত হলে যতদিন না রােগ উভয়েরই সম্পূর্ণরূপে নির্মূল হয় ততদিন যৌন মিলন বন্ধ রাখতে হবে ।

২। লঘু ও পুষ্টিকর খাদ্য খেতে হবে । দুধ , ঘি , ফলমূল , শাকসবজি প্রভৃতি অধিক পরিমাণে খেতে হবে । চারাপােনা , শিঙ্গি – মাগুর মাছের ঝােল খাওয়া ভাল । ডিম , মাংস , মদ প্রভৃতি না খেলেই ভাল হয় ।

৩। অতিরিক্ত গরম বা অতিরিক্ত ঠাণ্ডা লাগানাে উচিত নয় ।

৪। রােগ সত্বর চিকিৎসা করতে হয় এবং পরীক্ষা করে নির্মূল হয়েছে কিনা তা দেখে চিকিৎসা বন্ধ করতে হবে ।

4 thoughts on “সিফিলিস (Syphilis) বা উপদংশ রোগের কারণ, লক্ষন ও চিকিৎসা”

  1. আসসালামুআলাইকু স্যার আমার ৩বছর আগে গনোরিয়া হয়ছিলো পরে আমি টিকমেন্ট করে ফুল ভালো হয়ে যাই আর কোনো প্রবলেম হয়নি এখন আমি বিদেশে জাবার জন্য মেডিকেল করছি আমার রিপোর্টে খারাফ আশছে বলছে VDRL non reactive tpha reactive 1:160 স্যার আমি এখন কি ঔষুধ খেয়ে এই রোগ থেকে ভালো হয়ে আবার মেডিকেল দিতে পারি স্যার একটু জানাবেন খুব আশা নিয়ে লিকছি উত্তর এর অপেক্ষায় থাকলাম ——-আসসালামু আলাইকুম

  2. নমস্কার সার আমার 2012 থেকে VDRL আর TPHA পজিটিভ অনেক ডাক্তার দেখিয়েছি কিন্তু কিছুতেই কিছু হচ্ছে না সার আমি কিভাবে পুরোপুরি ভালো হয়ে যাবো PLZ PLZ সার হেল্প করুন আপনার উত্তরের অপেক্ষায় থাকলাম

  3. আমার বয়স 13। আমার এই রকম লক্ষ্যন দেখতে পেয়েছি ।লজ্জায় কিছু বলতে পারি নাই ।তো না বলে কি রোগ সমাধান করতে পারি?

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Change Language